মানবিক কাজ আওয়ামী লীগের সহ্য হয় না : মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি সবসময়ই জনগণের পাশে থেকেছে। বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের মহাদুর্যোগময় সময়েও বিএনপি দেশব্যাপী অসহায় মানুষকে সাহায্য-সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই মানবিক কাজকে মেনে নিতে পারছে না বর্তমান হিংসাশ্রয়ী আওয়ামী লীগ সরকার।

মানবিক কাজ আওয়ামী লীগের সহ্য হয় না : মির্জা ফখরুল
(ফাইল ছবি) মানবিক কাজ আওয়ামী লীগের সহ্য হয় না : মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি সবসময়ই জনগণের পাশে থেকেছে। বর্তমানে বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের মহাদুর্যোগময় সময়েও বিএনপি দেশব্যাপী অসহায় মানুষকে সাহায্য-সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই মানবিক কাজকে মেনে নিতে পারছে না বর্তমান হিংসাশ্রয়ী আওয়ামী লীগ সরকার।

রোববার সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আহবায়ক এ্যাডভোকেট সৈয়দ ইফতেখার আলী, যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব, সদস্য ও সাতক্ষীরা পৌরসভার মেয়র তাসকীন আহমেদ চিশতি, সদস্য আশেক এলাহী মুন্না, মহিলাদল নেত্রী ও উপজেলার সাবেক মহিলা চেয়ারম্যান নুরজাহান পারভীন ঝর্নার নেতৃত্বে করোনাভাইরাসের মহাসংকটকালে সাতক্ষীরা জেলায় ঘূর্ণিঝড় আমফানের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত শ্যামনগর উপজেলার অসহায়, গরীব ও ছিন্নমুল মানুষদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণের সময় আকস্মিকভাবে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সংসদ সদস্যের নির্দেশে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে একটি প্রাইভেট মাইক্রোবাসসহ কমপক্ষে ১০টি মোটরসাইকেল ভাংচুর এবং বেদম পিটিয়ে অন্তত: ১২ জন নেতাকর্মীকে গুরুতর আহত করে।

আহতদের মধ্যে শ্যামনগর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোক্তার হোসেন, ছাত্রদল নেতা রাসেল আহমেদ, কৃষকদল নেতা মাসুদ আহমেদসহ আনিস আলম, সালাম মিয়া, আজিজুল হক ও দুলু খন্দকার গুরুতর আহতাবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়া গত ১৭ জুন নারায়ণগঞ্জে ৮, ৯ ও ১০নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর ও মহিলা দল নেত্রী আয়শা আক্তার দীনার নেতৃত্বে ত্রাণসামগ্রী বিতরণকালে স্থানীয় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা একই কায়দায় হামলা চালিয়ে নেতাকর্মীদেরকে আহত করে। করোনা মহামারীর সংকটকালে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের দ্বারা সংঘটিত এই ধরণের ন্যাক্কারজনক হামলা ও নেতাকর্মীদের আহত করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের দুর্যোগকালীন সময়ে দেশে যখন গরীব ও ছিন্নমুল মানুষ দু মুঠো ভাতের জন্য হাহাকার করছে তখন ক্ষুধার্ত ও নিরন্ন মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখায় সেই মানবিক কাজটিকে কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না বর্তমান হিংসাশ্রয়ী সরকার। তাই দলীয় লোকজনদেরকে দিয়ে বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হিংস্রতার থাবা বিস্তার করেছে। নেতাকর্মীদের ওপর সশস্ত্র হামলা চালিয়ে তাদেরকে গুরুতর আহত করা হচ্ছে।

সূএ নয়াদিগন্ত