ভারতে মোস্ট ওয়ান্টেড ক্রিকেট জুয়ারির জামিন

২০ বছর আগে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। এর পর থেকে তার বিচার হচ্ছে। সেই বিচার আর শেষ হচ্ছে না।

ভারতে মোস্ট ওয়ান্টেড ক্রিকেট জুয়ারির জামিন
ছবি: সংগৃহীত

২০ বছর আগে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। এর পর থেকে তার বিচার হচ্ছে। সেই বিচার আর শেষ হচ্ছে না। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি ক্রিকেট মাঠে মোস্ট ওয়ান্টেড বুকি। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে তাকে ব্রিটেন থেকে ভারতে নিয়ে আসা হয়। বিচারের জন্য। কিন্তু তার পরই করোনাভাইরাসে জেরবার গোটা ভারত।

আর সেই সুযোগে জামিন পেয়ে গেল কুখাত ক্রিকেট জুয়াড়ি সঞ্জীব চাওলা। ভারতে আসার পর বারবার জামি্নের জন্য আবেদন করেছিল এই জুয়াড়ি। কিন্তু জামিন মঞ্জুর হচ্ছিল না। করোনাভাইরাস তার জন্য আশীর্বাদ হয়ে এল।
ভারতে আসার পর থেকে জেলে ছিল এই জুয়াড়ি।

কিন্তু করোনার এই পরিস্থিতি তাকে জামিন পেতে সুবিধা করে দিলো। ভারত ছাড়তে পারবেন না, এই শর্তে তাকে জামিন দেয়া হয়েছে। ২০০০ সালের ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে তার নাম জড়িয়েছিল। ক্রিকেট বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল তৎকালীন প্রোটিয়া অধিনায়ক হ্যান্সি ক্রনিয়ের একটি স্বীকারোক্তি। দক্ষিণ আফ্রিকার জনপ্রিয় অধিনায়ক স্বীকার করেছিলেন, তিনি বুকিদের প্ররোচনায় পা দিয়ে ম্যাচ ফিক্সিং করেছেন।

বুকিদের সঙ্গে ক্রোনিয়ের যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছিল এই সঞ্জীব চাওলা। এই ক্রিকেট জুয়াড়ির বিরুদ্ধে আরও বেশ কয়েকটি ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগও রয়েছে। ২০০০ সালের ৭ এপ্রিল ক্রনিয়ের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ দায়ের করেছিল দিল্লি পুলিশ। মাসখানেক পরে তিনি সব কথা স্বীকার করে নেন। সঞ্জীব চাওলার কথা জানান তিনি।


বছর দুয়েক পরে এক বিমান দুর্ঘটনায় ক্রোনিয়ে নিহত হন। তার পর আবার সেই ফিক্সিং কাণ্ডের গতি থমকে যায়। তত দিনে দেশ ছেড়ে ব্রিটেনে পালিয়ে যায় সঞ্জীব। এই জুয়াড়ির বিরুদ্ধে ২০১৩ সালে চার্জশিট দায়ের করে দিল্লি পুলিশ। সেই থেকে লন্ডনের আদালতে তাকে ভারতের হাতে প্রত্যর্পণের মামলা চলছিল। শেষমেশ তাকে দেশে আনতে সফল হয় দিল্লি পুলিশ। কিন্তু মাস তিনেকের মধ্যেই জামিন পেয়ে গেল সঞ্জীব।
সূত্র : জি নিউজ