জানাজায় ইমামতি করায় চাকরি গেল ইমামের!

ইমাম মাওলানা মো: নূর উল্যার অভিযোগ, সোনাগাজী পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের বক্সআলী ভূঁইয়া বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হিসাবে গত ৬ বছর যাবত দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

জানাজায় ইমামতি করায় চাকরি গেল ইমামের!
(ছবি: সংগৃহীত) জানাজায় ইমামতি করায় চাকরি গেল ইমামের!

ফেনীর সোনাগাজীতে মসজিদ পরিচালনা কমিটির পূর্ব অনুমতি না নিয়ে করোনা উপসর্গে মৃত ব্যক্তির দাফনের কাজ করায় মাওলানা নুর উল্যাহ নামে এক মসজিদের ইমামকে চাকরিচ্যুত করার অভিযোগ উঠেছে।

ইমাম মাওলানা মো: নূর উল্যার অভিযোগ, সোনাগাজী পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের বক্সআলী ভূঁইয়া বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হিসাবে গত ৬ বছর যাবত দায়িত্ব পালন করে আসছেন। গত ১৭ জুন বিকালে উপজেলার মতিগঞ্জ ইউনিয়নের সুলাখালী গ্রামের বাসিন্দা মাওলানা জিয়াউল হক করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করলে ইসলামিক ফাউন্ডেশন সোনাগাজীর কাফন-দাফন টিমের সদস্য হিসেবে মাওলানা নূর উল্যাহও দাফন কাজে অংশগ্রহণ করেন।
এতে মসজিদ কমিটি ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে গত ১৯ জুন শুক্রবার জুমার নামাজ থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।


মসজিদ কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর আওয়ামী লীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন আলাউল বলেন, মাওলানা নূর উল্যাহর বিষয়ে কমিটির অভিযোগ, তিনি কমিটির অনুমতি না নিয়ে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তির দাফন-কাফনে অংশগ্রহণ করেন, তাই মুতওয়াল্লীদের মাধ্যমে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য সাময়িকভাবে ছুটি দেয়া হয়েছে। ইমাম এ মুহূর্তে সরকারের কৃপা পাওয়ার আসায় কমিটির বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন সোনাগাজীর ফিল্ড সুপারভাইজার আলমগীর হোসেন জানান, মাওলানা নূর উল্যাহ ইসলামিক ফাউন্ডেশন সোনাগাজী উপজেলার করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারীদের দাফন কমিটির একজন সদস্য। তার সাথে বিমাতাসুলভ আচারণের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেবকে অবহিত করেছি। তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অজিত দেব জানান, বিষয়টি জানার পর তদন্ত কমিটি করে দিয়েছি। তদন্তের রির্পোট এলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সূএ নয়াদিগন্ত