কাশ্মিরে ভারতীয় সেনাসহ নিহত ২

আজ সকাল সাড়ে ৫টা নাগাদ পুলওয়ামার গোসু এলাকায় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ, সেনাবাহিনীর রাষ্ট্রীয় রাইফেলস এবং জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ যৌথভাবে গেরিলাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায়। এসময় ওই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

কাশ্মিরে ভারতীয় সেনাসহ নিহত ২
ছবি: সংগৃহীত

আজ সকাল সাড়ে ৫টা নাগাদ পুলওয়ামার গোসু এলাকায় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ, সেনাবাহিনীর রাষ্ট্রীয় রাইফেলস এবং জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ যৌথভাবে গেরিলাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায়। এসময় ওই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

এর আগে গত শনিবার জম্মু-কাশ্মিরের কুলগাম জেলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে দুই গেরিলা নিহত ও সেনাবাহিনীর এক সদস্য আহত হয়েছিলেন। কুলগামের আরা এলাকায় গেরিলাদের লুকিয়ে থাকার খবর পাওয়ার পরে ওই এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনী অভিযান চালায়।

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরের পুলওয়ামা জেলায় অজ্ঞাত গেরিলাদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক সেনা নিহত এবং দুই জন আহত হয়েছে। ওই ঘটনায় এক গেরিলাও নিহত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার এনডিটিভি হিন্দি ওয়েবসাইট সূত্রে ওই তথ্য জানা গেছে।

এদিকে, আজ মঙ্গলবার ‘আজতক’ হিন্দি টিভি চ্যানেলের ওয়েবসাইট জানিয়েছে, জম্মু-কাশ্মিরের কুলগামে আধা সামরিক বাহিনী ‘সশস্ত্র সীমা বল’ (এসএসবি) -এর এক কনস্টেবল এক গার্ড কমান্ডারকে হত্যা করেছে। কনস্টেবল ও গার্ড কমান্ডারের বিতর্কের মধ্যে গার্ড কমান্ডারকে গুলি করে হত্যা করে কনস্টেবল। পরে তিনি নিজেও গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হন। দু’জনেই এসএসবি জওয়ান ছিলেন।

আজ গণমাধ্যমে প্রকাশ, গতকাল সোমবার রাতে এএসআই পদমর্যাদার সন্দীপ কুমার এবং কনস্টেবল হেমন্ত শর্মার মধ্যে পিসি কুলগামের গেটে কিছুটা তর্ক হয়েছিল। উভয়ের মধ্যে তর্কবিতর্ক চলাকালীন কনস্টেবল হেমন্ত শর্মা মেজাজ হারিয়ে ইনসাস রাইফেল দিয়ে উপ-পরিদর্শক সন্দীপ কুমারের ওপরে গুলিবর্ষণ করলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন এসএসবি কর্মকর্তা সন্দীপ কুমার। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই কনস্টেবল হেমন্ত শর্মা নিজের ওপরেই গুলিবর্ষণ করলে ঘটনাস্থলে তিনিও মারা যান।

এর আগে গত ২৬ জুন করোলবাগ থানা এলাকায় আধাসামরিক বাহিনী আইটিবিপি’র কনস্টেবল সন্দীপ কুমার ইনসাস রাইফেল থেকে গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হন। সন্দীপ কুমার কেন ওই ঘটনা ঘটালেন তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পার্সটুডে